বিবাহিত জান্নাতুল নাঈম কিভাবে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

সোমবার, ০২ অক্টোবর ২০১৭ | ২:৪১ অপরাহ্ণ | 38 বার

বিবাহিত জান্নাতুল নাঈম কিভাবে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

বিয়ে হয়েছিল সদ্যসমাপ্ত ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের। জানা গেছে, এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের আগেই তার বিয়ে হয়।

আড়াই মাস সংসার করার পর এভ্রিল ডিভোর্স দেন স্বামীকে। জান্নাতুল নাঈমের বাবা তাহের মিয়া ও মা রেজিয়া বেগম। জান্নাতুল নাঈমের বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার ৫ নম্বর বরমা ইউনিয়নের সেরন্দি গ্রামের রাউলিবাগ এলাকায়। বাবা একজন কৃষক। বিয়ের ঘটনা নিয়ে জান্নাতুল নাঈমের সাথে বাবার সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায় বলে জানা গেছে।

এভ্রিলের সঙ্গে ২০১৩ সালের ২১ মার্চ চন্দনাইশ পৌর এলাকার বাসিন্দা ও কাপড় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মুনজুর উদ্দিনের বিয়ে হয়। ৮ লাখ টাকা দেনমোহর ছিল বিয়েতে। বিয়ের উকিল হন মেয়ের বাবা তাহের মিয়া। বিয়েতে কাজি ছিলেন আবু তালেব।

একই বছরের ১১ জুন তালাকনামায় সই করেন জান্নাতুল। চন্দনাইশ পৌরসভার কাজি অফিস থেকে প্রাপ্ত কাবিননামা অনুযায়ী এসব তথ্য জানা গেছে।

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার প্রথম ও প্রধান শর্ত হলো, প্রতিযোগীকে অবিবাহিত হতে হবে। কিন্তু জান্নাতুল বিবাহিত হওয়ায় পুরো মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতাটি বিতর্কিত হয়ে পড়ছে।

চন্দনাইশের বরমা ত্রাহিমেনকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন তিনি। ফলাফল প্রকাশের আগে ওই বছর ২১ মার্চ বেশ ধুমধাম করে একই উপজেলার কাপড় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মুনজুর উদ্দিনের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। চন্দনাইশ পৌর এলাকায় ভিআইপি ক্লথ স্টোর অ্যান্ড টেইলার্স নামে একটি কাপড়ের দোকান রয়েছে তার সাবেক স্বামী মুনজুরের।

বরমা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (ইউপি মেম্বার) নওশা মিয়া বলেন, ‘জান্নাতুলের বিয়ে হয়েছিল। দু-আড়াই মাস পর বিয়ে ভেঙে যায়। ‘

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের মা রেজিয়া বেগমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাগদানের কথা স্বীকার করলেও বিয়ের কথা অস্বীকার করেন। কাবিননামার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলে জানান। তিনি বলেন, সে তো ছোট ছিল কীভাবে বিয়ে বুঝতে পারছি না। এসএসসি পাস করার পর সে ভাইয়ের সাথে মহেশখালী চলে যায়।সূত্র:কালের কন্ঠ

zahidit

Development by: zahidit.com

Select language »