রবিবার ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আত্মহত্যা ।।পিংকি রানি সাহা

পিংকি রানি সাহা   |   সোমবার, ১২ জুলাই ২০২১ | প্রিন্ট

আত্মহত্যা ।।পিংকি রানি সাহা

“আত্মহত্যা”

একটা অব্যবহিত রুম,তাতে কিছুটা পুরাতন কাঠ,বাঁশ,পুরাতন ব্যাগ,মোটা সূতার দড়ি,তেলের জীর্ন টিন,আরো ছোট বড় ছড়ানো-ছিটানো জিনিসের মাঝখানে মনমরা চেহারায় দু’চোখ জলে ভিজা একটি মেয়ে বসে আছে।


কি ভাবছেন, মেয়েটি এবার আত্মহত্যা করবে.?
হ্যাঁ-মেয়েটি আত্মহত্যা করার উদ্দেশ্য নিয়েই এই রুমে এসেছিলো, তবে এখন আর সে আত্মহত্যা করবে না.!!

হয়তো প্রতিটা মানুষদের ক্ষেত্রেই আত্মহত্যা করতে যাওয়ার আগে বিবেকের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে, এই মেয়েটির মতই ভাবে।


মানুষ আসলে জীবনের মূল্য তখন বোঝে যখন সে জীবন আর মৃত্যুর মাঝখানে এসে দাঁড়িয়ে বাধ্য হয়।জীবনের সময় শেষ হয়ে গেলে মৃত্যু আসাটা স্বাভাবিক, কিন্তু মানুষ যখন নিজ থেকে মৃত্যুকে স্বাগতম জানাতে যায়, তখন হয়তো মৃত্যু-ই ঐ ব্যক্তিটির পাশে বন্ধুর মত কিছুক্ষণ বসে।তাকে আপনজনদের মত করে হয়তো বলে…………

শিক্ষার আলো ডট কমের ফেসবুক পেজ লাইক দিন ও ফলো করুন( ক্লিক করুন)।


ছায়ারুপী মৃত্যু:- আমার কাছে আসার আগে, তোমার অবশ্যই উচিত নিজের জীবনটাকে নিয়ে,সেই জীবনে পাওয়া আপনজনদের নিয়ে,ঐ আপনজনদের কাছ থেকে পাওয়া ভালবাসা/ভালোলাগা গুলো নিয়ে,আর বিনিময়ে দেয়া তোমার ভালবাসা,স্নেহ,দায়িত্ব-কতর্ব্য,আত্মত্যাগের পরিমানটা নিয়ে একবার ভাবো।

শিক্ষার আলো ডট কমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

জানোই তো আমার কাছে আসার পর তুমি কিন্তু ঐ জীবনে আর কভূ ফিরে যেতে পারবে না।তাই আমি চাই আমার কাছে আসার আগে তুমি ভালভাবে ভেবে দেখ,””তোমার কোন পিছুটান রেখে ঐ জীবন ত্যাগ করতে চাইছো না তো-যার জন্য আমার কাছে আসার আগেই তোমার দু’চোখের জল গাল বেয়ে এখনো পড়ছে.???

শিক্ষার আলো ডট কমের ফেসবুক পেজ লাইক দিন ও ফলো করুন( ক্লিক করুন)।

মৃত্যুকে পাওয়ার জন্য ব্যস্ত হওয়ার কি আছে,আমি তো তোমার সেই আপনজন যার কাছে তুমি না আসতে চাইলেও আমি তোমাকে নিজ থেকে গিয়ে জোর করে হলেও নিয়ে আসবোই আসবো।তবে,সময়ের আগে এভাবে আত্মহত্যা দিয়ে নয়।তবে তারমানে এই নয় যে,আমি তোমায় বাধা দিতে পারি,তুমি আসতে চাইলে আমি তোমাই নিতে সবসময় বাধ্য।
আর এটাও সত্য যে আমি চাই-

শিক্ষার আলো ডট কমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

“তুমি জীবনকে উপভোগ করতে গিয়ে সফলতাকে অজর্নের পর নিজেকে পূর্ণ সার্থক ভাবার পর আমার জন্য অপেক্ষা করো,আমি অভিনন্দন জানিয়ে তোমায় নিয়ে আসবো। এভাবে কেউ আত্মহত্যা করে আমার কাছে আসুক তা আমি চাইনা।”

সেদিন হয়তো ঐ ছায়ারুপী মৃত্যু মেয়েটিকে বলেছিলো,
“মৃত্যুর সবচেয়ে কাছের আপনজনের নাম জীবন।আর জীবন পৃথিবীতে থাকা আপনজনদের নিয়েই বেঁচে থাকে।তবে ঐ জীবন-ই আমার কাছে আসার পর ঐ পৃথিবীর আর কোন আপনজনদের কাছে কভূ যেতে পারেনা।

শিক্ষার আলো ডট কমের ফেসবুক পেজ লাইক দিন ও ফলো করুন( ক্লিক করুন)।

তাই আমি চাইছিলাম এখন তুমি মৃত্যুকে আলিঙ্গন করার চিন্তা বাদ দিয়ে,জীবন তোমায় যে আপনজনদের দিয়েছে তুমি তাদের প্রতি নিজের দায়িত্ব-কতর্ব্য গুলো পালন করো।
আমি জানি তোমার এই আপনজনেরাই হয়তো তোমায় কষ্ট দিয়েছে,তাই আবেগের মহে হয়তো এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছ। আর ভূলে গেছ,আজও হয়তো তুমি কারো কাছে ঋণী হয়ে আছো,কেউ হয়তো তোমার কাছ থেকে কিছুটা পাওয়ার আসাই বসে আছে।

শিক্ষার আলো ডট কমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

মৃত্যু-ই হয়তো মেয়েটি কে আদরে বলেছে,”তুমি জানো-আমি মৃত্যু বলে এই পৃথিবী কখনো কোন জীবনকে নিজের কাছে স্থায়ী ভাবে রাখেনা,তবে এই পৃথিবী কিন্তু প্রতিটা জীবনের কর্ম গুলোকে নিজের কাছে নিজের থেকেও বেশী ভালভাবে সামলে রাখে।সুতরাং এই পৃথিবী তোমায় ও নিজের কাছে রাখবেনা,কিন্তু তোমার কর্মগুলোকে তো রাখবে।

শিক্ষার আলো ডট কমের ফেসবুক পেজ লাইক দিন ও ফলো করুন( ক্লিক করুন)।

এখন বলো,তুমি এমন কোন কর্ম করেছ,যা এ পৃথিবী অনন্তকাল নিজের মাঝে সামলে রাখবে.?????
আমি চাই তুমি এমন কর্ম করার পর-ই আমার কাছে আসো,,,কিছু উপদেশ সবসময় মনে রেখো……

“”””””””বুদ্ধি দিয়ে কাজ করো
সদগুনের প্রকাশ করো
সৎ সঙ্গ কে আপন করো
আর মহৎ লোকের জীবনী পড়ো

আর আছে,
আত্মসৎযম করতে শেখো
কর্মে অনুতাপ-অনুশোচনা রাখো
আগে নিজের ভূল স্বীকার করো
পরে নম্রতা দিয়ে সবকিছু জয় করো।

এবং
পরনিন্দা ত্যাগ করে দিয়ে
নৈতিক আদর্শগুলো মেনে চলো
পবিত্রতার সততায় বিশ্বাস রেখে
তুমি পারবেই-এ আত্মবিশ্বাস পালো।

সব কথার শেষ কথা হলো
নিজেকে এমন ভাবে তৈরি করো
পরে যেন সবাইকে আপনজনের মত করে
সাহায্য করতে পারো।

যদি আমার এ কথাগুলো
একটু হলেও লাগে ভালো
নিজের জীবনকে সুন্দর করতে
সবগুলোই মেনে চলো।”””””””””

শিক্ষার আলো ডট কমের ফেসবুক পেজ লাইক দিন ও ফলো করুন( ক্লিক করুন)।

হটাৎ একটা আওয়াজে মেয়েটির নিরবতা ভেঙ্গে গেলো।ঐ মেয়েটির বাবা তাকে কখন থেকে আওয়াজ দিচ্ছেন।বকা দিয়ে বলছেন,আজ কেউ বাসায় নেই,অথচ সারা বাড়ি খুলা রেখে ঐ অব্যবহিত রুমে ধূলো বালির মাঝে গিয়ে কি করছিস.?সাপ বিছু যদি বের হয়,একা কি করতে পারবি তখন.?
মেয়েটির চোখের জল গাল বেয়ে পড়তে গিয়ে কখন যে শুকিয়ে গেছে,তা বুঝতেই পারেনি।বাবার আওয়াজ শুনে তারাহুরা করে ঐ অব্যবহিত রুম থেকে বের হয়ে,রুমটা বাইরে থেকে বন্ধ করে চলে গেল।

শিক্ষার আলো ডট কমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

কিংবা হয়তো মেয়েটি মৃত্যুর কাছ থেকে বিদায় নিয়ে,মৃত্যুকে আশ্বাস দিয়ে গেলো এই বলে যে-“আমি তোমার কাছে আসবো,তবে তখন-যখন তুমি নিজে আমায় নিতে আসবে।”

লেখক: পিংকি রানি সাহা, প্রভাষক-যুক্তিবিদ্যা,
           পাইকপাড়া এম.এ.আহাদ আধুনিক কলেজ, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

শিক্ষার আলো ডট কমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Facebook Comments Box

Posted ৪:২৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১২ জুলাই ২০২১

শিক্ষার আলো ডট কম |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

Blooming Child – Shamsun Nahar Zeba

(558 বার পঠিত)

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
অফিস

১১৯/২, চৌগাছা, যশোর-৭৪১০

হেল্প লাইনঃ 01644-037791

E-mail: shiksharalo.news@gmail.com