শনিবার ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবস পালিত

  |   রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | প্রিন্ট

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবস পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ মহান একুশে ফেব্রুয়ারি,আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস। দিবসটি উপলক্ষে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার সবুজের সমারোহে ঘেরা নিভৃত পল্লীর,মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে নিবেদিত প্রাণ ও হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর অত্যন্ত স্নেহভাজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ শমশের আলীর স্মৃতিবিজড়িত শমশের নগরে যথাযথ মর্যাদা ও ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে সদ্য জাতীয়করণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনকৃত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবস পালিত হয়েছে। দিবসের কর্মসূচির মধ্যে ছিল শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ,আলোচনা সভা এবং মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

একুশের প্রথম প্রহরে কলেজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কলেজের প্রতিষ্ঠাতা  ও সভাপতি ডাঃ রাশেদ শমশের,পরে তিনি অধ্যক্ষ মোঃ সফিকুল ইসলাম, শিক্ষক,কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে নিয়ে আরেকবার শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।সভাপতি মহোদয়ের পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সিনিয়র শিক্ষকদের সাথে নিয়ে  অধ্যক্ষ মোঃ সফিকুল ইসলাম শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এছাড়াও শমশের নগরে অবস্থিত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন।


সবার কন্ঠে ছিল একই সুর ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’……..

পরে মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক গোকুল কুমার বিশ্বাসের সঞ্চালনায় ও অধ্যক্ষ মোঃ সফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন অত্র কলেজের দর্শন  বিভাগের প্রভাষক  এম.এ মারুফ(সোহেল),তিনি তার বক্তব্যে বলেন,মুখের ভাষার জন্য প্রাণ দিয়ে বিরল ইতিহাস গড়েছে বাঙালি। প্রাণের ভাষা বাংলাকে উর্দুর পাশাপাশি পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে গড়ে ওঠা দুর্বার আন্দোলনে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত, রফিক প্রমুখের তাজা রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল ঢাকার রাজপথ। যার ফলে বাংলা ভাষা পায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদা। তারই পথ ধরে শুরু হয় বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন এবং একাত্তরে ৯ মাস পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।


এছাড়াও আলোচনায় অংশ নেন,ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক রবিউল ইসলামসহ শমশের নগরে অবস্থিত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অত্র কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ডাঃ রাশেদ শমশের বলেন, পশ্চিম পাকিস্তানি শাসকেরা যখন অন্যায়ভাবে উর্দুকে একমাত্র রাষ্ট্রভাষা হিসেবে বাঙালির ওপরে চাপিয়ে দিতে উদ্যত হয়েছিল, তখন সারা পূর্ব বাংলা ফুঁসে উঠেছিল প্রতিবাদে, বিক্ষোভে। ১৯৫২ সালে সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্ররা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিছিল করে এগিয়ে যেতে থাকলে তাঁদের ওপর গুলি চালানো হয়। সালাম, বরকত, রফিক, শফিক, জব্বারসহ অনেকে নিহত হন। আজ সেই বীর শহীদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করতে রাজধানীসহ সারা দেশের শহীদ মিনারে প্রভাতফেরি নিয়ে যাবেন আবালবৃদ্ধবনিতা। কণ্ঠে থাকবে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি…।’


সমাপনী বক্তব্যে কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সুযোগ্য অধ্যক্ষ জনাব মোঃ শফিকুল ইসলাম ডাবলু বলেন,বঙ্গবন্ধু পরাধীন বাঙালি জাতিকে কাঙ্খিত স্বাধীনতা দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা দিয়েই ক্ষান্ত হননি, বাঙালি জাতির জন্য সংবিধান রচনা করে অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসা এই পাঁচটি মৌলিক অধিকার সংবিধানে নিশ্চিত করে গেছেন।তিনি বলেন, বাঙালি জাতির জীবনে আজ এক গৌরবোজ্জ্বল দিন—মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। আজ থেকে ৬৯ বছর আগে মাতৃভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য জীবন উৎসর্গ করার অভূতপূর্ব দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন বাংলা মায়ের অকুতোভয় সন্তানেরা। এই অনন্য ইতিহাসকে স্বীকৃতি দিয়ে ইউনেসকো ১৯৯৯ সালে দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। সেই থেকে বাঙালির আত্ম-অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের দিনটি সারা বিশ্বেই পালিত হয়ে আসছে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সদস্যবৃন্দ,শমশের নগরে অবস্থিত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ,অত্র কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক তরুণ কুমার বিশ্বাস, বাংলা বিভাগের প্রভাষক গৌরাঙ্গ কুমার বিশ্বাস, ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক মোঃ শফিকুল ইসলাম,পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক স্বাগতম চক্রবর্তী ,ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক জিয়াউর রহমান,অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক আব্দুল আলিম ও জীব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মুনজুমান আরা বেগমসহ কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ এবং আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ও এলাকাবাসী।

সমাপনী বক্তব্যে শেষে সকল শহীদদের আত্মার শান্তি ও মাগফেরাত কামনায় এক বিশেষ মোনাজাত ও সকলের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

Facebook Comments Box

Posted ৫:৫৮ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১

শিক্ষার আলো ডট কম |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
অফিস

১১৯/২, চৌগাছা, যশোর-৭৪১০

হেল্প লাইনঃ 01644-037791

E-mail: shiksharalo.news@gmail.com